নিউজ ফাস্ট

জুনের মধ্যে এসএমই প্লাটফর্ম চালু করতে চায় বিএসইসি

 

ক্ষুদ্র ও মাঝারি আকারের কোম্পানিগুলোকে ব্যবসার প্রয়োজনে পুঁজিবাজার থেকে মূলধন জোগানের সুযোগ করে দিতে আইনি ও লেনদেন কাঠামো গড়ে তোলার কাজ চলছে কয়েক বছর ধরেই। এরই মধ্যে এসএমই প্লাটফর্ম চালুর জন্য প্রয়োজনীয় কারিগরি প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জ (ডিএসই)। এ বছরের জুনের মধ্যেই এসএমই প্লাটফর্মে কোম্পানির তালিকাভুক্তি কার্যক্রম শুরু করতে চায় পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি)।


কমিশন সূত্রে জানা গেছে, এক্সচেঞ্জের মূল মার্কেটে প্রাথমিক গণপ্রস্তাবের (আইপিও) মাধ্যমে তালিকাভুক্তির জন্য আবেদন করা কিছু কোম্পানিকে এসএমই প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে কাজ করছে বিএসইসি। এর মধ্যে রয়েছে সুব্রা সিস্টেমস, অরিজা এগ্রো ইন্ডাস্ট্রিজ, মাস্টার ফিড এগ্রোটেক ও নায়েলকো অ্যালয়। এ কোম্পানিগুলো বিভিন্ন কারণে মূল মার্কেটে আসার অনুমোদন পায়নি। তারা এখন এসএমই প্লাটফর্মে তালিকাভুক্তির জন্য আগ্রহ প্রকাশ করেছে। কেউ কেউ বিএসইসির কাছে এসএমই প্লাটফর্মের জন্য নির্দিষ্ট থাকা পরিশোধিত মূলধনের সর্বোচ্চ সীমার বিষয়ে ছাড় চেয়ে আবেদনও করেছে। এক্ষেত্রে ছাড় দিয়ে হলেও কোম্পানিগুলোকে এসএমই প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে চায় কমিশন। এসব কোম্পানির পাশাপাশি ওভার দ্য কাউন্টার (ওটিসি) মার্কেটে থাকা কোম্পানি যাদের পারফরম্যান্স ভালো তাদেরও এ প্লাটফর্মে নিয়ে আসার পরিকল্পনা রয়েছে। এছাড়া তথ্যপ্রযুক্তি খাতের কয়েকটি স্টার্টআপ কোম্পানিকে এ প্লাটফর্মে নিয়ে আসতে কাজ করছে বিএসইসি। সব মিলিয়ে এ বছরের জুনের মধ্যে ৮ থেকে ১০টি কোম্পানির মাধ্যমে এসএমই প্লাটফর্মের যাত্রা শুরু করার পরিকল্পনা রয়েছে কমিশনের।



জানতে চাইলে বিএসইসির নির্বাহী পরিচালক ও মুখপাত্র মোহাম্মদ রেজাউল করিম বণিক বার্তাকে বলেন, এসএমই প্লাটফর্ম চালুর পর দুই বছর হয়ে গেলেও বিভিন্ন কারণে এখনো কোনো কোম্পানিকে তালিকাভুক্ত করা সম্ভব হয়নি। বর্তমান কমিশন দ্রুততম সময়ের মধ্যে এসএমই প্লাটফর্মে কোম্পানির তালিকাভুক্তি নিশ্চিত করতে চায়। বর্তমারে আমাদের পাইপলাইনে পাঁচটি কোম্পানির আবেদন প্রক্রিয়াধীন। এর বাইরে আরো বেশকিছু কোম্পানিকে নিয়ে আসার উদ্যোগ নেয়া হয়েছে। আশা করছি, এ বছরের জুনের মধ্যেই প্লাটফর্মটিতে কোম্পানির তালিকাভুক্তি কার্যক্রম শুরু করা সম্ভব হবে।

No comments