নিউজ ফাস্ট

মিউচুয়াল ফান্ড ও ইটিএফ গঠন করবে গ্রীন ডেল্টা



দুটি বেমেয়াদি মিউচুয়াল ফান্ড ও এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ফান্ড গঠনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে পুঁজিবাজারে তালিকাভুক্ত বীমা খাতের কোম্পানি গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড। ফান্ড দুটিতে উদ্যোক্তা হিসেবে বিনিয়োগ করবে কোম্পানিটি। ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) মাধ্যমে গতকাল এ তথ্য জানিয়েছে গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স।


বেমেয়াদি গ্রীন ডেল্টা ড্রাগন এনহ্যান্সড ব্লু চিপ গ্রোথ মিউচুয়াল ফান্ডটির মোট আকার হবে ৫০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ২ কোটি ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করবে গ্রীন ডেল্টা। বাকি ৪৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা অন্যান্য উদ্যোক্তা ও পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলন করা হবে। ডিএস ৩০ ইনডেক্স ট্র্যাকিং এক্সচেঞ্জ ট্রেডেড ফান্ডটির (ডিএস ৩০ ইটিএফ) আকার নির্ধারণ করা হয়েছে ৫০ কোটি টাকা। এর মধ্যে ২ কোটি ৫০ লাখ টাকা বিনিয়োগ করবে গ্রীন ডেল্টা। বাকি টাকা অন্যান্য উদ্যোক্তা ও পুঁজিবাজার থেকে উত্তোলন করা হবে।


৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত ২০২১ হিসাব বছরে শেয়ারহোল্ডারদের ৩০ শতাংশ নগদ লভ্যাংশ দিয়েছে গ্রীন ডেল্টা ইন্স্যুরেন্স লিমিটেডের পরিচালনা পর্ষদ। আলোচ্য হিসাব বছরে কোম্পানিটির শেয়ারপ্রতি সমন্বিত আয় (ইপিএস) হয়েছে ৮ টাকা ৪৩ পয়সা। যেখানে এর আগের হিসাব বছরে ইপিএস ছিল ৬ টাকা ৬৬ পয়সা (পুনর্মূল্যায়িত)। সেই হিসাবে এক বছরের ব্যবধানে কোম্পানিটির ইপিএস বেড়েছে ২৬ দশমিক ৫৮ শতাংশ। এর আগে ২০২০ সালের ৩১ ডিসেম্বর সমাপ্ত হিসাব বছরের জন্য শেয়ারহোল্ডারদের মোট ৩২ শতাংশ লভ্যাংশ দিয়েছিল কোম্পানিটি। এর মধ্যে ২৪ দশমিক ৫ শতাংশ নগদ ও ৭ দশমিক ৫ শতাংশ স্টক লভ্যাংশ।




১৯৮৯ সালে শেয়ারবাজারে তালিকাভুক্ত কোম্পানিটির অনুমোদিত মূলধন ৫০০ কোটি টাকা। পরিশোধিত মূলধন ১০০ কোটি ১৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা। রিজার্ভে রয়েছে ৫৯৪ কোটি ৩২ লাখ টাকা। মোট শেয়ার ১০ কোটি ১ লাখ ৮৮ হাজার ১৯৪। এর মধ্যে উদ্যোক্তা-পরিচালকদের হাতে রয়েছে ৩৩ দশমিক ৫১ শতাংশ শেয়ার। এছাড়া প্রাতিষ্ঠানিক বিনিয়োগকারীদের কাছে ২০ দশমিক ৫৯, বিদেশী বিনিয়োগকারীদের কাছে ৪ দশমিক ৬০ শতাংশ ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের হাতে বাকি ৪৪ দশমিক ৩০ শতাংশ শেয়ার রয়েছে।


ডিএসইতে গতকাল কোম্পানিটির শেয়ারের সর্বশেষ ও সমাপনী দর ছিল ৭৭ টাকা। গত এক বছরে শেয়ারটির দর ৬২ টাকা থেকে ১৪৯ টাকা ৯০ পয়সার মধ্যে ওঠানামা করেছে।

কোন মন্তব্য নেই