নিউজ ফাস্ট

বস্ত্র খাতের শেয়ারে ঝুঁকছে বিনিয়োগকারীরা

 

বস্ত্র খাতের শেয়ারে বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বাড়ছে। চলতি সপ্তাহের প্রথম তিন কার্যদিবসে দেশের পুঁজিবাজারে লেনদেনের শীর্ষে ছিল বস্ত্র খাত। পাশাপাশি এ সময়ে খাতটির শেয়ারে উল্লেখযোগ্য হারে রিটার্নও পেয়েছেন বিনিয়োগকারীরা। চলতি অর্থবছরে বস্ত্র খাতের রফতানিতে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি হওয়ার কারণে এ খাতের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বাড়ছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।


বিজ্ঞাপন



বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, চলতি সপ্তাহের প্রথম কার্যদিবস রোববারে পুঁজিবাজারের মোট লেনদেনের ১৬ দশমিক ৬ শতাংশই ছিল বস্ত্র খাতের। এদিন এ খাতের শেয়ারে দশমিক ১ শতাংশ ইতিবাচক রিটার্ন এসেছিল। গত সোমবার বস্ত্র খাতের দখলে ছিল মোট লেনদেনের ১৮ দশমিক ৪ শতাংশ। এদিন এ খাতের শেয়ারে ১ দশমিক ৭ শতাংশ ইতিবাচক রিটার্ন এসেছে। গতকাল পুঁজিবাজারের মোট লেনদেনের ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ ছিল বস্ত্র খাতের। এদিন এ খাতে দশমিক ৬ শতাংশ ইতিবাচক রিটার্ন এসেছে।


বাজার বিশ্লেষকরা বলছেন, চলতি ২০২১-২২ অর্থবছরের প্রথম ১১ মাস শেষে দেশের তৈরি পোশাক রফতানি বেড়েছে ৩৪ দশমিক ৮৭ শতাংশ ও হোম টেক্সটাইল খাতে রফতানি বেড়েছে ৪১ দশমিক ৩ শতাংশ। রফতানিতে উল্লেখযোগ্য প্রবৃদ্ধি হওয়ার কারণে এ খাতের তালিকাভুক্ত কোম্পানিগুলোর ব্যবসা ভালো হবে বলে প্রত্যাশা করছেন বিনিয়োগকারীরা। এ কারণে এ খাতের শেয়ারের প্রতি বিনিয়োগকারীদের আগ্রহ বেড়েছে।


বিজ্ঞাপন



গতকাল ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শুরু হয় দেশের পুঁজিবাজারে। মাঝে কিছুটা ছন্দপতন হলেও শেষ পর্যন্ত দিনশেষে ২২ পয়েন্ট বেড়ে ৬ হাজার ৩৪২ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জের (ডিএসই) সার্বিক সূচক ডিএসইএক্স। এর আগের কার্যদিবসে যা ছিল ৬ হাজার ৩২০ পয়েন্টে। অন্য সূচকগুলোর মধ্যে ডিএসইর ব্লু-চিপ সূচক ডিএস-৩০ গতকাল ৯ পয়েন্ট বেড়ে ২ হাজার ২৯৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আগের দিন শেষে যা ছিল ২ হাজার ২৮৫ পয়েন্টে। শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস গতকাল দিন শেষে ৫ পয়েন্ট বেড়ে ১ হাজার ৩৮৬ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আগের দিন শেষে যা ছিল ১ হাজার ৩৮১ পয়েন্টে। গতকাল সূচকের উত্থানে সবচেয়ে বেশি অবদান রেখেছে স্কয়ার ফার্মাসিউটিক্যালস, ব্র্যাক ব্যাংক, ডেল্টা লাইফ ইন্স্যুরেন্স, বিকন ফার্মাসিউটিক্যালস ও তিতাস গ্যাসের শেয়ারের।



ডিএসইতে গতকাল ৮১৮ কোটি টাকার সিকিউরিটিজ লেনদেন হয়েছে। যেখানে আগের কার্যদিবসে লেনদেন ছিল ৭০০ কোটি টাকা। এদিন লেনদেন হওয়া ৩৮২টি কোম্পানি, মিউচুয়াল ফান্ড ও করপোরেট বন্ডের মধ্যে দিন শেষে দর বেড়েছে ১৯৯টির, কমেছে ১৩৩টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৫০টি সিকিউরিটিজের বাজারদর।


খাতভিত্তিক লেনদেনচিত্রে দেখা যায়, গতকাল ডিএসইর মোট লেনদেনের ১৭ দশমিক ৫ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে বস্ত্র খাত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১১ শতাংশ দখলে নিয়েছে প্রকৌশল খাত। ১০ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে ওষুধ ও রসায়ন খাত।


দেশের আরেক পুঁজিবাজার সিএসইর নির্বাচিত সূচক সিএসসিএক্স গতকাল ২৯ পয়েন্ট বেড়ে ১১ হাজার ১৮৮ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আগের কার্যদিবসে সূচকটির অবস্থান ছিল ১১ হাজার ১৫৯ পয়েন্টে। সিএসইর সব শেয়ারের সূচক সিএএসপিআই গতকাল ৪৭ পয়েন্ট বেড়ে ১৮ হাজার ৬৬৪ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে। আগের কার্যদিবসে সূচকটির অবস্থান ছিল ১৮ হাজার ৬১৭ পয়েন্টে। এদিন এক্সচেঞ্জটিতে লেনদেন হওয়া ২৯৩টি কোম্পানি ও মিউচুয়াল ফান্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১৬০টির, কমেছে ৯৭টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৩৬টির বাজারদর।

কোন মন্তব্য নেই