নিউজ ফাস্ট

লাৎজিওতে ৩৫ হাজার বাংলাদেশির টেস্টের সিদ্ধান্ত












বাংলাদেশ ফেরত লোকজনের করোনা শনাক্ত হওয়া, অত্যাবশ্যকীয় কোয়ারেন্টিন নির্দেশনা না মানায় ইতালির লাৎজিওতে বসবাসরত প্রায় ৩৫ হাজার বাংলাদেশির করোনা টেস্টের সিদ্ধান্ত হয়েছে। আগামী সোমবার থেকে রোমের বাংলাদেশ দূতাবাসের পাশে একটি অস্থায়ী ক্যাম্প পরিচালনা করবে ইতালির স্বাস্থ্য বিভাগ। তাতে কেবল মাত্র লাৎজিও অঞ্চলের বাংলাদেশ কমিউনিটির সদস্যদের টেস্ট হবে। ইতালির বাংলাদেশ মিশনে পাঠানো তথ্যের উদ্ধৃতি দিয়ে পররাষ্ট্র মন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন গতকাল মানবজমিনকে বলেন, কি মুশকিল, এই ক’জন লোক, যারা কোয়ারেন্টিন মানে না, না ঢাকায় মানলো, না রোমে, তাদের জন্য পুরো কমিউনিটি আজ ভোগান্তিতে পড়েছে। কোয়ারেন্টিনে না থেকে কমিউনিটিতে মিশে যাওয়ায় এখন রোমের ৩৫ হাজার মানুষের টেস্ট করতে হচ্ছে। এদিকে বাংলাদেশ মিশনের দায়িত্বশীল সূত্র গতকাল সন্ধ্যায় মানবজমিনকে জানায়, বাংলাদেশ ফেরত ৭৭ জনের করোনা পজিটিভ এসেছে দু’দিনে। এখন সেই সংখ্যা আরো বেড়েছে। তবে কত বেড়েছে তা জানানো হয়নি।
এ অবস্থায় ‘ক্লাস্টার ট্রান্সমিশনের বা গুচ্ছ সংক্রমণ আশঙ্কায় রোম কর্তৃপক্ষ বাংলাদেশি সম্প্রদায়ের সব সদস্যের করোনা পরীক্ষার নির্দেশনা জারি করেছে। লাৎজিও স্বাস্থ্য বিভাগের প্রধান আলেসিও ডি’ আমাতো এক বিবৃতিতে বলেছেন, বাংলাদেশিদের জন্য আলাদা একটি কেন্দ্র খোলা হচ্ছে। সেখানে তাদের স্বেচ্ছায় নমুনা প্রদানের ভিত্তিতে টেস্ট হবে। বাংলাদেশ মিশন জানায়, টেস্ট নিশ্চিতে ক্যাম্পেইন চলছে, তবে কাউকে জোর করা হচ্ছে না। পররাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, করোনায় ইতালি রীতিমতো মৃত্যুপুরিতে পরিণত হয়েছিল। তারা দৈনিক শত শত মৃত্যু দেখেছে। সেই জায়গা থেকে বহু কষ্টে তাদের উত্তরণ ঘটেছে। এ অবস্থায় বাংলাদেশসহ বিভিন্ন দেশ থেকে যাওয়া লোকজনের মাধ্যমে করোনার নতুন সংক্রমণ নিশ্চিতভাবে তাদের ভাবাচ্ছে। ইতালির স্বাস্থ্য বিভাগ এটি রোধে যে সিদ্ধান্তই নিবে ঢাকার তাতে সায় রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বাংলাদেশ কমিউনিটিরও উচিত সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে সহায়তা করা।





No comments