নিউজ ফাস্ট

সকাল ১০টার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ, হল না ছাড়ার ঘোষণা শিক্ষার্থীদের



তালা ভেঙে হলে ওঠা শিক্ষার্থীদের আজ সকাল ১০টার মধ্যে হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় (জাবি) প্রশাসন। রবিবার রাতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত নিবন্ধক রহিমা কানিজ স্বাক্ষরিত এক জরুরি বিজ্ঞপ্তিতে শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার এ নির্দেশনা দেয়া হয়। তবে হলে অবস্থানরত শিক্ষার্থীরা হল না ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন।


বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ২০ ফেব্রুয়ারি সন্ধ্যায় কিছু সংখ্যক শিক্ষার্থী সরকারি নির্দেশ অমান্য করে কোনো কোনো আবাসিক হলে অবস্থান নিয়েছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদেরকে ২২ তারিখ সকাল দশটার মধ্যে হল ত্যাগের নির্দেশ দিচ্ছে। অন্যথায় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বাধ্য হবে।


এছাড়া বিজ্ঞপ্তির সত্যতার বিষয়টিও বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রক্টর আ স ম ফিরোজ উল হাসান নিশ্চিত করেছেন।



হল না ছাড়ার কথা জানিয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের স্নাতকোত্তর এক শিক্ষার্থী সকালে বলেন, 'হল ছাড়বো না। হল ছেড়ে দিয়ে কোথায় যাবো। গেরুয়াতে মার খেতে যাবো? আমার যাওয়ার জায়গা নেই। প্রশাসন যে আইনে ব্যবস্থা নেয় নিক।'


এদিকে আজ দুপুর ১২টা পর্যন্ত হল খুলে দেওয়ার আল্টিমেটাম দিয়েছে নারী শিক্ষার্থীরা। এর মধ্যে হল না খুললে তারা হলের তালা ভেঙে প্রবেশ করার ঘোষণা দিয়েছেন।


আন্দোলনরত শিক্ষার্থীরা জানান, 'আগামী ২৪ ঘন্টার মধ্যে আবাসিক হলে শিক্ষার্থীদের থাকার সুব্যবস্থা এবং গেরুয়া গ্যাং এর বিচার না করতে পারলে বিশ্ববিদ্যালয়ের সমস্ত অফিস, কোয়ার্টার, প্রক্টর স্যার, ভিসি ম্যামসহ সকলের বাসায় তালা মেরে দেয়া হবে।'


উল্লেখ্য, দুদিন আগে বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন গেরুয়া এলাকায় স্থানীয়দের সঙ্গে সংঘর্ষের পরে নিরাপত্তার দাবিতে শনিবার দিনভর বিক্ষোভ দেখিয়ে তালা ভেঙে হলে ঢুকে পড়েন শিক্ষার্থীরা। রবিবার তাদের সঙ্গে আরো কিছু শিক্ষার্থী হলে উঠেছেন। রবিবার দুপুরে বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন চত্বরে সংবাদ সম্মেলন করে ক্যাম্পাস ও হল পুরোপুরি খুলে দেয়াসহ ছয় দফা দাবি তুলে ধরেছেন তারা।


এদিকে সরকারিভাবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বা হল খোলার কোনো ঘোষণা না আসায় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ শিক্ষার্থীদের হল ছাড়ার নির্দেশ দিয়েছে।


দেশে করোনাভাইরাসের প্রকোপ শুরুর পর সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মত জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ও গতবছর ১৭ মার্চ বন্ধ ঘোষণা করা হয়। সেই সঙ্গে ক্যাম্পাসে দর্শনার্থী প্রবেশ এবং সব ধরনের অনুষ্ঠান ও জমায়েত নিষিদ্ধ করে কর্তৃপক্ষ।

No comments