নিউজ ফাস্ট

এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন





 

কঠোর লকডাউনের মধ্যেও উত্থান অব্যাহত রয়েছে দেশের উভয় পুঁজিবাজারে। গতকাল পুঁজিবাজারের সব সূচক বেড়েছে। একই সঙ্গে বেড়েছে টাকার অংকে লেনদেনও। এরই মধ্যে ঢাকা স্টক এক্সচেঞ্জে (ডিএসই) এক মাসের মধ্যে সর্বোচ্চ লেনদেন হয়েছে। তবে বেশির ভাগ প্রতিষ্ঠানের শেয়ার ও ইউনিট দর কমেছে।


বাজারসংশ্লিষ্টরা বলছেন, আস্থা বৃদ্ধি পাওয়ায় বর্তমানে পুঁজিবাজার ঊর্ধ্বমুখী রয়েছে। বিনিয়োগকারীদের ইতিবাচক মনোভাব এবং অংশগ্রহণ বৃদ্ধিতে দেশে কঠোর লকডাউন পরিস্থিতিতেও বাজারে লেনদেন বেড়ে চলছে। ব্যাংকের সঙ্গে সামঞ্জস্য রেখে লকডাউনে পুঁজিবাজার খোলা রাখার বিষয়টি অনেক ইতিবাচক প্রভাব ফেলেছে। এতে করে বাজারে কারসাজিকারীরা সুবিধা করে উঠতে পারেনি। এছাড়া বিনিয়োগকারীদের মাঝে আতঙ্ক সৃষ্টি করে বাজারে পতন ঘটিয়ে তাদের কাছ থেকে কম দরে শেয়ার হাতিয়ে নেয়াও সম্ভব হয়নি।


বাজার পর্যালোচনায় দেখা যায়, গতকাল লেনদেনের শুরুর পর পরই সূচকের পতন ঘটে। এরপর সূচক বাড়তে শুরু করে। দিনশেষে ঊর্ধ্বমুখী প্রবণতায় লেনদেন শেষ হয়। গতকাল ডিএসইর প্রধান সূচক ডিএসইএক্স ১৮ পয়েন্ট বেড়ে ৫ হাজার ৩৫০ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে, যা এর আগের দিন ছিল ৫ হাজার ৩৩১ পয়েন্টে। সেই হিসাবে সূচকটি বেড়েছে দশমিক ৩৫ শতাংশ।


ডিএসইর শরিয়াহ সূচক ডিএসইএস গতকাল ৪ পয়েন্ট বা দশমিক ৩৮ শতাংশ বেড়ে দিন শেষে ১ হাজার ২১৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে, যা আগের দিন ছিল ১ হাজার ২১১ পয়েন্টে। ব্লু-চিপ সূচক ডিএস-৩০ দিনের ব্যবধানে প্রায় ৬ পয়েন্ট বেড়েছে। গতকাল সূচকটি দশমিক ৩২ শতাংশ বেড়ে দিনশেষে ২ হাজার ৪৬ পয়েন্টে দাঁড়িয়েছে, আগের দিন শেষে যা ছিল ২ হাজার ৪০ পয়েন্টে।


গতকাল ডিএসইতে লেনদেন হয়েছে ৬৯৭ কোটি ২৯ লাখ ৬৮ হাজার টাকার শেয়ার, যা গত ২৮ দিনের মধ্যে সর্বোচ্চ। এর আগে গত মার্চ মাসের ২২ তারিখে ডিএসইতে লেনদেন হয়েছিল ৬৯৩ কোটি ১৭ লাখ ৫ হাজার টাকা।

ডিএসইতে গতকাল লেনদেন হওয়া ৩৪৬টি কোম্পানি, মিউচুয়াল ফান্ড ও করপোরেট বন্ডের মধ্যে দিনশেষে দর বেড়েছে ১২৬টির, কমেছে ১৫২টির আর অপরিবর্তিত ছিল ৬৮টি সিকিউরিটিজের শেয়ারদর।


খাতভিত্তিক লেনদেনচিত্রে দেখা যায়, গতকাল ডিএসইর মোট লেনদেনের ৩১ শতাংশ দখলে নিয়ে শীর্ষে অবস্থান করছে সাধারণ বীমা খাত। দ্বিতীয় সর্বোচ্চ ১৭ শতাংশ দখলে নিয়েছে বিবিধ খাত। ১২ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে তৃতীয় অবস্থানে রয়েছে আর্থিক প্রতিষ্ঠান খাত। আর ৬ দশমিক ২৪ শতাংশ লেনদেনের ভিত্তিতে চতুর্থ অবস্থানে ছিল খাদ্য ও আনুষঙ্গিক খাত।


গতকাল ডিএসইতে লেনদেনের ভিত্তিতে শীর্ষ সিকিউরিটিজ ছিল বাংলাদেশ এক্সপোর্ট ইমপোর্ট কোম্পানি (বেক্সিমকো) লিমিটেড, বাংলাদেশ ফাইন্যান্স অ্যান্ড ইনভেস্টমেন্ট কোম্পানি (বিডি ফাইন্যান্স) লিমিটেড, লংকাবাংলা ফাইন্যান্স লিমিটেড, ব্রিটিশ আমেরিকান টোব্যাকো বাংলাদেশ কোম্পানি লিমিটেড, লাফার্জহোলসিম বাংলাদেশ লিমিটেড, রবি আজিয়াটা লিমিটেড, এশিয়া প্যাসিফিক জেনারেল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড, বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমটেড, নিটল ইন্স্যুরেন্স কোম্পানি লিমিটেড ও সোনার বাংলা ইন্স্যুরেন্স লিমিটেড।


দেশের আরেক পুঁজিবাজার সিএসই গতকাল সিএসসিএক্স সূচক দিনের ব্যবধানে ৩৫ পয়েন্ট বেড়ে ৯ হাজার ৩৩৩ পয়েন্টে অবস্থান করছে। আগের কার্যদিবসে সূচকটির অবস্থান ছিল ৯ হাজার ২৯৭ পয়েন্টে। সেই হিসাবে সূচকটি বেড়েছে দশমিক ৩৮ শতাংশ। এদিন এক্সচেঞ্জটিতে লেনদেন হওয়া ২৪০টি কোম্পানি, মিউচুয়াল ফান্ড ও করপোরেট বন্ডের মধ্যে দর বেড়েছে ১০৮টির, কমেছে ১০৮টির।





কোন মন্তব্য নেই