নিউজ ফাস্ট

নবায়নযোগ্য জ্বালানিতে বিনিয়োগ করবে গুগল-মাইক্রোসফট


জলবায়ু পরিবর্তন নিয়ে বিশ্বের প্রায় সব দেশই চিন্তিত। বিভিন্ন প্রযুক্তিপ্রতিষ্ঠানও এখন তত্পর। এর অংশ হিসেবে গুগল ও মাইক্রোসফট নতুন চুক্তির ঘোষণা দিয়েছে, যার মাধ্যমে ডাটা সেন্টারগুলোর জন্য নবায়নযোগ্য জ্বালানির ব্যবহার বাড়ানো হবে। খবর টেকটাইমস।


রেজিস্টারের তথ্যানুযায়ী, যুক্তরাজ্যে থাকা ক্যাম্পাসে শক্তি সরবরাহের জন্য স্কটল্যান্ডের মোরে ওয়েস্ট অফশোর উইন্ড ফার্ম থেকে ১০০ মেগাওয়াট বিদুৎ নেবে গুগল। এজন্য ফ্রান্সের এনজির সঙ্গে শক্তি ক্রয় চুক্তি করেছে সার্চ ইঞ্জিন জায়ান্ট গুগল। এছাড়া গুগল জানায়, নতুন চুক্তির মাধ্যমে ২০৩০ সাল নাগাদ প্রতিষ্ঠানটি যুক্তরাজ্যে থাকা সব ডাটা সেন্টার ও কার্যক্রমকে নবায়নযোগ্য শক্তির আওতায় আনতে পারবে। অন্যদিকে এনজির সঙ্গে যে পিপিএ স্বাক্ষর হয়েছে তার মাধ্যমে ২০২৫ সাল নাগাদ প্রতিষ্ঠানটি ৯০ শতাংশ কার্বন নিরপেক্ষতা অর্জন করতে পারবে।


গুগলের ইএমইএ প্রেসিডেন্ট ম্যাট ব্রিটিন এক বিবৃতিতে জলবায়ু পরিবর্তন ও শক্তি সুরক্ষার বিষয়ে যুক্তরাজ্য, ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশের উদ্বেগের বিষয়টি স্বীকার করেছেন। একই সময়ে মাইক্রোসফট আয়ারল্যান্ডে তাদের পিপিএ চুক্তির বিষয়টি ঘোষণার মাধ্যমে জানিয়েছে। এর আওতায় দেশটিতে থাকা ডাটা সেন্টারগুলোতে অতিরিক্ত ৯০০ মেগাওয়াট নবায়নযোগ্য শক্তি উৎপাদন ও সরবরাহ করা হবে। তবে নবায়নযোগ্য শক্তির ব্যাপারে চুক্তি সম্পাদনকারী প্রতিষ্ঠানের নাম প্রকাশ করেনি মাইক্রোসফট। অন্য সূত্রে পাওয়া তথ্যানুযায়ী, নরওয়ের স্ট্যাটক্রাফট ও আয়ারল্যান্ডের এনার্জিয়া গ্রুপ এ চুক্তির সঙ্গে জড়িত। বায়ু ও সৌর এ দুই উপায়ে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হবে। মাইক্রোসফটের তথ্যানুযায়ী, ২০২৫ সাল থেকে প্রতিষ্ঠানটির অধিকাংশ প্রকল্পে নবায়নযোগ্য শক্তি ব্যবহার করা হবে।


প্রাথমিকভাবে বিশ্বের মোট বিদ্যুৎ ব্যয়ের ১ শতাংশ ডাটা সেন্টারগুলোতেই হয়। আন্তর্জাতিক শক্তি সংস্থার জরিপ সূত্রে এ তথ্য জানা গিয়েছে। দ্য রেজিস্টার জানায়, দুটি প্রতিষ্ঠানই নবায়নযোগ্য শক্তি কেনার হার বাড়ানোর কথা জানিয়েছে। সেদিক থেকে এ চুক্তি সামঞ্জস্যপূর্ণ।

কোন মন্তব্য নেই